অবশেষে মুক্তি পাচ্ছে আজহার

azharভারতীয় গ্রেট ক্রিকেটার মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের জীবনী নিয়ে নির্মিত হয়েছে চলচ্চিত্র ‘আজহার’। একতা কাপুরের প্রযোজনা ও টনি ডি সুজার পরিচালনায় ছবিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন বলিউড তারকা ইমরান হাশমি।

অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে আগামীকাল শুক্রবার (১৩ মে) ছবিটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। তাই বলিউডের সবখানে এখন আলোচনায় ‘আজহার’। শুধু বলিউডে নয়, এই ছবিটি তোলপাড় তুলেছে ক্রিকেটাঙ্গনেও।

যদিও এটা আজহারউদ্দিনের জীবনী তবুও এখানে অনেক পরিবর্তন এনেছেন নির্মাতা। চাইলেও একজন তারকার সবকিছু বলে দেয়া যায় না। আবার মাত্র তিন ঘণ্টায় আজহারউদ্দিনের মতো তারকার জীবন সম্পূর্ণভাবে বলাও যায় না। তাই এই পরিবর্তন।

ছবিতে গুরুত্ব পেয়েছ আজহারের সাবেক স্ত্রী বলিউড তারকা সঙ্গীতা বিজলানির চরিত্রটি। সাবেক এই নাকি এই ছবিতে নিজের চরিত্রের ব্যাপারে আপত্তি আছে। তবে পরিচালকের পক্ষ নিয়েছেন খোদ আজহার নিজে। তিনি বলেছেন, ‘আমার তা মনে হয় না। এমন রিপোর্ট আমিও পড়েছি। সঙ্গীতা কিছু না বুঝেই এমনটি বলছে।’

ছবিতে আজহারউদ্দিনের জীবনের উত্থাণ পতনের গল্প তুলে ধরা হয়েছে। ১৯৯০’এর বেশিরভাগ সময়টা ভারতের অধিনায়ক ছিলেন আজহার। সফল এই অধিনায়ক ২০০০ সালে ম্যাচ ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে আসেন। পরে আজীবন নিষিদ্ধ হয়ে ক্রিকেট ছাড়েন ২০০০ সালে। পরে অবশ্য ২০১২ সালে তাকে এই দায় থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে।

ছবিতে ইমরান হাশমির পাশাপাশি প্রাচি দেশাই, নার্গিস ফাখরি, লারা দত্তদের দেখা যাবে।

এই ছবিটি করতে গিয়ে ইমরানকে অনেক কসরত করতে হয়েছে। তিনি শিখেছেন আজহারের ব্যাটিং স্টাইল। এটা মোটেও তার জন্য সহজ কিছু ছিলো না। কেননা, আজহারের কিছু ট্রেডমার্ক শট রয়েছে ব্যাটিংয়ে। সেগুলো একজন ক্রিকেট না খেলা মানুষের জন্য রপ্ত করা বেশ কঠিন।

সেই দুঃসাধ্যকেই সাধন করেছেন ইমরান আজহারউদ্দিনের সাহায্য নিয়ে। ক্রিকেট ম্যাচের শুটিং শুরুর আগে নিয়মিত আজহারের কাছে কোচিং নিয়েছেন ইমরান। ঘড়ি ধরে রোজ সকাল ন’টায় আজহার নাকি হাজির হয়ে যেতেন ইমরানকে ব্যাটিং প্র্যাক্টিস করাত। নিজে হাতে ধরে ইমরানকে তার যাবতীয় ট্রেডমার্ক ক্রিকেট শট শিখিয়েছেন আজহার। প্রায় ছ’মাসের কোচিং পর্ব শেষে লন্ডনে ক্রিকেট ম্যাচের শুটিং হয়। শুধু আজহারই নন, তার ছেলে আব্বাসও গোটা সিনেমার সঙ্গে জড়িয়ে ছিলেন।

এবার দেখার পালা, ভারতীয় ক্রিকেটে রুপকথার রাজকুমার সেলুলয়েডে কতোটা বাজিমাত করতে পারেন।

Pin It