অবসরে যাচ্ছেন এমন কর্মকর্তারা যুক্তরাষ্ট্র সফরে যেতে পারবেন না

songsodকয়েক মাসের মধ্যে অবসরের যাবেন এমন কর্মকর্তাদের বাদ দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সফরের জন্য নতুন তালিকা তৈরির সুপারিশ করেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। সংসদীয় সাব কমিটির প্রতিবেদনের আলোকে এই সুপারিশ করা হয়েছে। একইসঙ্গে অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য আগামীতে এ ধরনের প্রতিনিধি দল নির্বাচিত না করার জন্য মন্ত্রণালয়কে বলা হয়েছে।

রোববার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি মীর শওকাত আলী বাদশা। বৈঠকে কমিটি সদস্য মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, খন্দকার আজিজুল হক আরজু ও অ্যাডভোকেট মুহম্মাদ আলতাফ আলী এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মীর শওকত আলী বাদশা সাংবাদিকদের বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্থগিত শিক্ষা সফর প্রকল্পের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে নতুন সদস্য অর্ন্তভুক্ত করে আয়োজনের সুপারিশ করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে সাব কমিটির সুপারিশের আলোকে ৯ সদস্যের পূর্বনির্ধারিত প্রতিনিধি দল থেকে ৫ জনকে বাদ দিতে বলা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সাব কমিটি তদন্ত করে নিশ্চিত হয়েছে, ওই ৫ জনের একজন ইতোমধ্যে এলপিআরে চলে গেছেন। বাকি ৪ জন আগামী বছর জুনের মধ্যে এলপিআরে যাবেন। তাই তাদের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য বিদেশ পাঠিয়ে কোনো লাভ নেই।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সিরাজগঞ্জ সরকারি ভেটেরিনারি কলেজ স্থাপন প্রকল্পের অর্থায়নে প্রায় কোটি টাকা ব্যয়ে গত ১ নভেম্বর থেকে ১২ নভেম্বর পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফরের পরিকল্পনা করেন মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ সচিব মাকসুদুল হাসান খান। যিনি আগামী বছরের শুরুতে অবসরে যাবেন। এই প্রতিনিধি দলের সদস্য প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মহাপরিচালক অজয় কুমার রায় ২৫ নভেম্বর অবসরে গেছেন। আইএমইডির মহাপরিচালক মো. সেফাউল আলম আগামী চলতি বছরের ১৬ ডিসেম্বরে  আর পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি-পানি সম্পদ ও পল্লী উন্নয়ন বিভাগের চিফ সরদার ইলিয়াস হোসেন আগামী বছর ২০ জানুয়ারি এবং মন্ত্রীর একান্ত সচিব মো. মোস্তাফিজুর রহমান আগামী জুন মাসে অবসরে যাবেন।

বাংলাদেশের আবহাওয়ার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ এমন দেশের ভেটেরিনারি শিক্ষা কার্যক্রম পরিদর্শন করে অর্জিত জ্ঞান দেশের ভেটেরিনারি শিক্ষায় কাজে লাগানো এই শিক্ষা সফরের উদ্দেশ্য হলেও প্রতিনিধিদলে মাত্র একজন ভেটেরিয়ান ছিলেন। বাকি সবাই সরকারের বিভিন্ন বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

কমিটি সূত্র জানায়, বিষয়টি নিয়ে গত ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এ ধরনের শিক্ষা সফর আয়োজনের কঠোর সমালোচনা করেন কমিটির সদস্যরা। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশের পাশাপাশি ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের সাব কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজুকে আহ্বায়ক করে গঠিত সাব কমিটিতে অ্যাডভোকেট মুহম্মদ আলতাফ আলী ও শামছুন নাহার বেগমকে সদস্য রাখা হয়। আর তদন্ত প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত ওই সফর স্থগিত করা হয়। তদন্ত শেষে শনিবার কমিটির বৈঠকে সাব কমিটির প্রতিবেদন উত্থাপন করা হয়।

Pin It